আটকের পর পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯
  • ১৭৫ বার পঠিত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় আটকের পর পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম মাহমুদুল হাসান (৩৭)।
বুধবার রাত ১টার দিকে শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্পসংলগ্ন পাহাড়ে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশের দাবি, নিহত রোহিঙ্গা মাহমুদুল হাসান সন্ত্রাসী ও ডাকাত। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি, মানবপাচারসহ একাধিক মামলা রয়েছে। মাহমুদুল টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এইচ ব্লকের মৃত বাকের আহমদের ছেলে।
টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, একটি মামলায় রোহিঙ্গা ডাকাত মাহমুদুলকে আটক করা হয়। এর পর তার কাছ থেকে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে বুধবার রাত ১টার দিকে শালবন রোহিঙ্গা শিবিরসংলগ্ন পাহাড়ে অস্ত্র উদ্ধার অভিযানে যায় পুলিশ।
এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা মাহমুদুলের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এতে পুলিশের কনস্টেবল মিঠুন, শাহীন ও হাবিব আহত হন।
এ সময় পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলিবর্ষণ করে। এ সময় অন্য সন্ত্রাসীরা পিছু হটতে বাধ্য হয়। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি এবং গুরুতর আহতাবস্থায় গুলিবিদ্ধ ডাকাত মাহমুদুল হাসানকে উদ্ধার করা হয়।
আহত মাহমুদুলকে চিকিৎসার জন্য প্রথমে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।
নিহত মাহমুদুলের বিরুদ্ধে ডাকাতি, মানবপাচারসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর