ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে বক্তরা বলেন নিষ্কৃয় জাসাস সক্রিয় করতে আব্দুল মান্নান রানা’র বিকল্প নেই।

সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৩ মে, ২০২৩
  • ৫৭ বার পঠিত

 

চট্টগ্রাম  নগর জাসাসের সাবেক সভাপতি, প্রখ্যাত সংগীত শিল্পী আব্দুল মান্নান রানা’র সাথে গতকাল  চট্টগ্রাম মহানগর জাসাসের নেতাকর্মীরা ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন।
এসময় তারা বলেন, বর্তমান নগর জাসাসের আহবায়ক কমিটির মেয়াদ প্রায় দেড় বছর সময়কাল অতিক্রম করলেও গত এক বছর ধরে নিষ্ক্রিয়। বিএনপি’র বিভাগীয় কর্মসুচী থেকে শুরু করে যেকোন কর্মসুচীতে ফটোসেশন ছাড়া  তাদের কোন প্রকার সাংস্কৃতিক আন্দোলনের কর্মকাণ্ড শুন্যের কোঠায় রয়েছে। এমনকি গত ২৭ ডিসেম্বর জাসাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কয়েকজন মিলে পুষ্পস্তবক অর্পন ছাড়া আর কোন কর্মসুচী দিতে পারেনাই। এছাড়াও ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মার্তভাষা দিবস, ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে তাদের কোন অস্থিত্ব মেলেনি। নগর জাসাসের এমন করুন অবস্থা এর আগে কখনো হয়নি। জাসাসকে আবার আগের মতো বেগবান করতে অতিদ্রুত মেয়াদ উত্তীর্ণ এই আহবায়ক কমিটি বিলুপ্ত করে আব্দুল মান্নান রানাকে পুণরায় দায়িত্ব দিতে কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে দাবী জানান। তারা বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের হাতে গড়া এই সংগঠনকে সক্রিয় করে  বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের হাতকে শক্তিশালী করতে চট্টগ্রাম মহানগর জাসাসে সংগীত শিল্পী আব্দুল মান্নান রানার বিকল্প নেই।
উল্ল্যেখ্য শিল্পী আব্দুল মান্নান রানাকে সভাপতি করে নগর জাসাসের  ১১১ সদস্য বিশিষ্ট পুর্নাংগ কমিটি  একবছরের মাথায় ভেংগে দিয়ে  গত ৯ জানুয়ারী ২০২২ ইং তারিখে এম এ মুসা বাবলুকে আহবায়ক ও মামুনুর রশীদ সিপনকে সদস্য সচিব করে ৬১ সদস্য বিশিষ্ট  আহবায়ক কমিটি ঘোষনা দেন। যে কমিটিতে আব্দুল মান্নান রানা ছাড়াও অনেক ত্যাগী নেতা কর্মীদের বাদ দেন এবং অনেককে অবমুল্যায়ন করা হয়। এ থেকে নগর জাসাসের নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
উপস্থিত নেতাকর্মীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন, নগর জাসাসের সাবেক সহ সভাপতি কবি ফরিদুল আলম মিল্লাত, মিনহাজ উদ্দীন সানি ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম প্রমুখ। এছাড়া অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর