কুষ্টিয়ায় স্কুল ছাত্রের মৃতদেহ উদ্ধার: লাশের ডান হাতে বুকে পিঠে আঘাতের চিহ্ন

কে এম শাহীন রেজা কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি।।
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৫ মার্চ, ২০২২
  • ১৬৪ বার পঠিত

 

কুষ্টিয়া পৌরসভার জুগিয়া ভাটাপাড়ার পৌর কাউন্সিলর মহিদুলের গড়াই নদীর বালুরঘাট থেকে গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টায় আকাশ নামের এক স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই রাত্রেই ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছেন কুষ্টিয়া মডেল থানা।

নিহত আকাশ আলী (১৫) জুগিয়া ভাটাপাড়া এলাকার ফারুক হোসেনের ছেলে। সে স্থানীয় আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল। কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ছাব্বিরুল আলম বলেন, রাত ১১টার দিকে খবর পান জুগিয়া ভাটাপাড়া এলাকায় গড়াই নদের ভেতর বালুঘাটে একটি লাশ পড়ে আছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় লোকজন ও বালুশ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন ড্রামট্রাকে বালুবোঝাই করার পর যাওয়ার সময় ড্রামট্রাকের ধাক্কা লেগে আকাশ মারা যায়।

শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে হাসপাতালের মর্গে কুষ্টিয়া মডেল থানার উপপরিদর্শক জাহাঙ্গীর সেলিম লাশের সুরতহাল করছেন। তিনি বলেন, লাশের ডান হাতের ওপর, বুক ও পিঠে আঘাতের চিহ্ন আছে। এটা দুর্ঘটনা কি না, সেটা খতিয়ে দেখা হবে। সে সময় মর্গের সামনে আকাশের পরিবারের সদস্যরা ছিলেন। তাঁরা বলছেন, আকাশের বাবা স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মহিদুল ইসলামের সঙ্গে অংশীদারত্বের ভিত্তিতে ইটভাটার ব্যবসা করেন। আকাশ রাত ১০টার দিকে ফোন পেয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর জানতে পারে ড্রামট্রাকের ধাক্কায় সে মারা যায়।

লাশের সুরতহাল ও ময়নাতন্তের ওখানে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর মহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, আকাশ প্রায়ই বালুরঘাটে আসত। রাতে ড্রামট্রাকের ধাক্কায় সে মারা যায়, অন্য কিছু নয়। কিন্তু উপস্থিত এলাকাবাসীরা প্রতিবেদককে বলেন, এটা দুর্ঘটনা নয় এটা একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। তারা এটাও বলেন পিতার ব্যবসায়িক দ্বন্দ্বের বলি হতে হলো ছেলেকে।

নিহত আকাশের ভাই শান্ত মর্গে আসলে কিছু ব্যক্তি শান্তকে বারংবার সাংবাদিকদের কাছ থেকে সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। মৃত্যুর বিষয়ে অন্য কোন কারণ থাকতে পারে কিনা এ বিষয়ে শান্তকে জিজ্ঞাসা করা হলে, শান্ত কিছু একটি বিষয় বলতে চাচ্ছিলেন কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তির চামচারা তাঁকে সাংবাদিকদের কাছ থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেন। স্থানীয়রা প্রতিবেদককে বলেন, পিতার ব্যবসায়ের দ্বন্দ্বের বলি হতে হল আকাশকে। এখান থেকেই সাধারন জনগনের মধ্যে প্রশ্ন জেগেছে এটা একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। জরুরী ভিত্তিতে এটার তদন্ত করলে মূল রহস্য উদঘাটন হতে সময় লাগবে না বলে দাবি করেন এলাকাবাসী। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কুষ্টিয়া মডেল থানায় এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ দায়ের হয় নাই।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর