নওগাঁর ৭ নং ওর্য়াড এর রাস্তার বেহাল অবস্থা

সুবীর দাস, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৬ আগস্ট, ২০২১
  • ৫৫১ বার পঠিত

নওগাঁ সদর উপজেলার ৭নং ওর্য়াড পার-নওগাঁ সরদারপাড়ার রাস্তাটি সংস্কার, সম্প্রসারন ও পাকাকরনের অভাবে হাজারো মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দেখার যেন কেউ নেই। সামান্য বৃষ্টি হলেই পুরো রাস্তাটি কর্দমাক্ত কাদায় পরিণত হয়। এসময় পথচারীদের দুর্ভোগের সীমা থাকে না।

সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায়, বাদশার খড়ির দোকান এর সামনে থেকে, সাবেক কাউন্সিলর আজাদ এর বাড়ি পর্যন্ত প্রায় ৮০০মিটার পাকা রাস্তা। এই রাস্তাটি শহরের যোগাযোগব্যবস্থার একটিই ম্যাধম। এই রাস্তা দিয়ে আশে পাশের প্রায় ৪ গ্রামের মানুষের চলাচল। বৃষ্টির হলেই ছোট বড় গর্ত সৃষ্টি হওয়াই চলাচলে অযোগ্য হয়ে পরে।

স্থানীয় রুবেল হোসেন বলেন, নির্বাচনের সময় জনপ্রতিনিধিরা রাস্তাটি নির্মানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আমাদের কাছ থেকে ভোট নেয়। কিন্তু নির্বাচনের পর জনপ্রতিনিধিরা আমাদের আর কোন খোঁজ খবর নেয় না। ফলে পার-নওগাঁ সরদারপাড়া গ্রাম সহ আশেপাশের কয়েক হাজার মানুষের জনদুর্ভোগ চরমে।

রাস্তায় ছোট-ছোট গর্ত ও কাঁদা, পানির কারণে একটা ভ্যানগাড়ী নিয়ে যাওয়াও কষ্টকর। এই এলাকার কোন লোক গুরুতর অসুস্থ হলে তাকে সময় মতো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া কষ্টকর।

পার-নওগাঁ গ্রামের সুমন হোসেন বলেন, পৌর মেয়র ভোটের সময় এলাকার রাস্তাঘাট উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট নেয়, নির্বাচিত হওয়ার পর উন্নয়ন হয় শুধু তার। আমাদের নওগাঁ পৌরসভার বেশী ভাগ রাস্তা অবহেলিত। এই বর্ষার মৌসুমে জনগণের যে কতটা কষ্ট হয়, তা তিনি কি আর স্ব-চক্ষে দেখেন।

৭নং ওর্য়াড এর কাউন্সিলর সারোয়ার তামজীদ সম্রাট বলেন, আমাদের এই ০৭ নং ওয়ার্ডের রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন প্রায় পাঁচ হাজার মানুষের চলাচল।এছাড়াও শহরের মধ্যে যানজট নিরাসনের জন্য এই রাস্তার ভূমিকা অপরিসীম। আমার আগে যারা এই সাত নং ওয়ার্ডের দায়িত্বে ছিলেন, তিনি কোনো কাজ করেন নাই। যদি কাজ করতেন রাস্তার এই অবস্থা হতো না।তবে আমি দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই চেষ্টা করছি এ রাস্তা দ্রুত কাজ যেন হয় এবং আমার নিজ উদ্যোগে রাস্তা চলাচলের জন্য আগামী ৭ দিনের মধ্যে একটা ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এই বিষয়ে নওগাঁ পৌর মেয়র নাজমুল হক সনি জানান, পার নওগাঁ বাদশার খড়ির দোকান হইতে সাবেক কাউন্সিলর আজাদের বাড়ী পর্যন্ত রাস্তাটি ইউজিপ-৩ প্রকল্প মোট ১২কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে, করোনায় কারণে প্রকল্পটির পাস হতে দেরি হচ্ছে। আশা করি এ বছরের মধ্যেই টেন্ডার হয়ে রাস্তার কাজ শুরু হবে।
সুবীর দাস
নওগাঁ

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর