প্রার্থীর টাকায় দুইটি পালসার কেনা হলেও চাকরী হলো আরেকজনের

হরিনাকুন্ড (ঝিনাইদহ) থেকে বাচ্চু মিয়া
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১০৩ বার পঠিত

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার ভালকী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে চার কর্মচারি নিয়োগ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। বুধবার এবং বৃহস্পতিবার বিভিন্ন দৈনিকে এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশিত হলে ভালকী, চারাতলা ও শিতলী বাজারে পত্রিকার কপি বিতরণ করতে দেখা যায়। এছাড়া ইজাজ নামের এক প্রর্থীর টাকায় বিদ্যালয়ের সভাপতি ইয়ামিন চৌধুরী ও শিক্ষক সলেমান দুইটি পালসার গাড়ি কিনলেও টাকা দেওয়া সেই প্রার্থীকে চাকরী দেওয়া হয়নি। এ নিয়ে ভালকী গ্রামে শোরগোল শুরু হয়েছে। ভালকী গ্রামের তমছের আলী মন্ডল অভিযোগ করেন, তার ছেলে ইজাজকে অফিস সহকারী পদে চাকরীর জন্য সভাপতি ইয়ামিন চৌধুরী ও শিক্ষক সলেমান মন্ডলের কাছে ৮ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা দেন। এই টাকা দেওয়ার ক’দিন পরই যশোর থেকে এক সাথে দুইটি কালো পালসার গাড়ি কিনে আনেন সভাপতি ইয়ামিন ও শিক্ষক সলেমান। অথচ টাকা দেওয়ার পরও তার ছেলে ইজাজকে চাকরী দেওয়া হয়নি। বেশি টাকা পেয়ে ওই পদে আরেকজনকে চাকরী দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে তিনি দুদক ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ করবেন বলে তমছের আলী জানান। উল্লেখ্য ভালকী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খালেদুজ্জামান খালেক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইয়ামিন চৌধুরী মোটা অংকের টাকা নিয়ে চারটি পদে নিয়োগ দিয়েছেন। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। টাকা ভাগাভাগী নিয়ে যেকোন সময় মারামারি বা নিয়োগের বিরুদ্ধে মাদলা হতে পারে বলে এলাকাবাসি আশংকা প্রকাশ করছেন। বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির তিন সদস্য আনোয়ার হোসেন, শিপন আলী ও সাবনুর অভিযোগ করেন, মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে গত ৪ সেপ্টেম্বর ভালকী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কম্পিউটার ল্যাব অপারেটর, অফিস সহায়ক, নিরাপত্তাকর্মী ও আয়া পদে চাকরী দেওয়া হয়েছে। মোটরসাইকেল কেনা নিয়ে বিদ্যালয়ের সভাপতি ইয়ামিন চৌধুরী সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে রাজি হননি। সভাপতি এবং প্রধান শিক্ষকের সহযোগী পায়রাডাঙ্গা গ্রামের নুরো মন্ডলের ছেলে ভালকী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সলেমান মন্ডলের বক্তব্য নিতে ফোন করা হলে তিনি ফোন ধরেননি। হরিণাকুন্ডু উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফজলুল হক বলেন, ভালকী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর চার কর্মচারি নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে স্থানীয় পত্রপত্রিকা ও সামাজিক মাধ্যমে খবর দেখেছি। আমার কাছে এ নিয়ে কোন অভিযোগ আসলেও নিয়োগ শেষ হওয়ার পর আমার কিছুই করার নেই।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর