মেহেরপুরে পলাতক আসামি আদালতে আত্মসমর্পণ,কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট, ২০২২
  • ১৬৯ বার পঠিত

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাথুলী ইউনিয়নের ধলা গ্রামের স্থানীয় ইউপি সদস্য ইমদাদুল হক, তার বড় ভাই জাহিদুল ইসলাম এবং ছোট ভাই রুহুল আমিনকে গুলি ও জবাই করে হত্যা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি আছিম উদ্দিন আদালতে আত্মসমর্পণ করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

 

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে আসিম উদ্দিন মেহেরপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত আত্মসমর্পণ করলে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক রিপতি কুমার বিশ্বাস তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। আছিম উদ্দিন মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ধলা গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে।

 

মামলার বিবরণে জানা গেছে, মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাথুলী ইউনিয়নের নির্বাচনে এলাকায় আধিপাত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ২০০৮ সালের ৩১ আগষ্ট রাত ৩টার দিকে ওই এলাকার ত্রাস দুখুর নেতৃত্বে প্রায় ৪০ জন সন্ত্রাসী ধলা গ্রামের মোসলেম আলীর ছেলে ইউপি সদস্য ইমদাদুল হক ওরফে ইন্দা , তার বড় ভাই জাহিদুল ইসলাম এবং ছোট ভাই রুহুল আমিন ঘুমন্ত অবস্থায় ঘর থেকে টেনে হেঁচড়ে বাইরে এনে প্রথমে গুলি এবং পরে জবাই করে নির্মমভাবে হত্যা নিশ্চিত করে লাশ রেখে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পরদিন সকালে পুলিশ তিন ভাইয়ের লাশ উদ্ধার করে ।

 

এঘটনার পরদিন জাহিদুল ইসলামের স্ত্রী রেনুকা খাতুন বাদি হয়ে মিনহাজ উদ্দিন দুখু, তোজাম্মেল, আছিম উদ্দিন, আব্দুল মালেক নাহারুল ইসলাম, আজিজুল হক, সাবদার আলী, কাবুল ইসলামসহ মোট ৩২ জনকে আসামী করে গাংনী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-১। গাংনী থানা। জি আর কেস নং ৩৬২ /৮। পরে গাংনী থানার এস আই মোরাদ আলী ও শফিকুল ইসলাম মামলার প্রাথমিক তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

 

মামলায় ৪০ জন সাক্ষী তাদের সাক্ষ্য প্রদান করেন। পরে ২০১৬ সালের ১৯ মে চাঞ্চল্যকর তিন ভাই হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।রায়ে মিনহাজ উদ্দিন ওরফে দুখুকে মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত ফাঁসিতে জুলিয়ে রাখার আদেশ দেন। মামলায় একই গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে আছিম উদ্দিন ও মোবারক হোসেনের ছেলে তোজাম্মেলের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয় এবং যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আছিম উদ্দিন ও তোজাম্মেলের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো ৩ মাসের কারাদন্ডাদেশ দেন। মামলার পলাতক আসামি আছিম উদ্দিনকে আটকের দিন থেকে তার শাস্তি শুরু হওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়।

 

এদিকে হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হওয়ার পর আছিম উদ্দিন মালয়েশিয়ায় পালিয়ে যান। জানা গেছে দীর্ঘদিন মালয়েশিয়া থাকার পর গত ৪ দিন পূর্বে তিনি দেশে ফিরেছেন। দেশে ফেরার ৪দিন পর বৃহস্পতিবার তিনি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর