মেহেরপুর জেলায় সবচেয়ে বেশি রাজাকার।১৬ ডিসেম্বর সারা দেশের তালিকা প্রকাশ করা হতে পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ২৬৮ বার পঠিত

 

 

আগামি ১৬ ডিসেম্বর সারা দেশের রাজাকারদের তালিকা প্রকাশ করা হতে পারে। এরই মধ্যে ১০টি জেলার তালিকা পর্যালোচনা করে দেখা গেছে মেহেরপুর জেলায় সবচেয়ে বেশি রাজাকার। সেখানে মোট ১৬৯ জন রাজাকার রয়েছে।

সরকার দীর্ঘদিন ধরে মুক্তিযোদ্ধাদের পাশাপাশি রাজাকার, আলবদর, আল শামসদের তালিকা প্রকাশ করার কথা বলে আসছে। মেহেরপুরের পর নড়াইল জেলায় ৫০, শরীয়তপুরে ৪৪ জন, চাঁদপুরে ৯ জন এবং বাগেরহাটে ১ জন রাজাকার রয়েছে। মোট ২৭৩ জনের তালিকা পাওয়া গেছে বলে মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে সংসদীয় কমিটিতে।

গত রোববার (১ ডিসেম্বর) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ তথ্য উপস্থাপন করা হয়।পরবর্তী বৈঠকে বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপনের জন্য বলা হয়েছে। জানা যায়, জেলা প্রশাসকদের কাছে এ সংক্রান্ত একটি তালিকাও প্রণীত হয়েছে। তবে সেই তালিকা যাচাই-বাছাই চলছে।

বিষয়টি সরকার খুব সতর্কতার সঙ্গে বিষয়টির সমাধান করতে চায়। কারণ কোনো ব্যক্তির নাম একবার রাজাকার, আলবদর, আল শামসের তালিকায় লিপিবদ্ধ হওয়ার পর যদি প্রকৃত অর্থে সে রাজাকার না হন তাহলে তার জন্য চরম অপমানের হবে পাশাপাশি এই পরিকল্পনাও প্রশ্নবিদ্ধ হবে। তাই সময় নিয়ে হলেও নির্ভুলভাবে কাজটি সম্পন্ন করতে চায় সরকার।

মুক্তিযুদ্ধের সময় বেতন ভাতা উত্তোলনকারী রাজাকারদের তালিকা সংরক্ষণের জন্য গত ২১ আগস্ট জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) বরাবর পত্র প্রেরণ করা হয় এবং গত ২৮ আগস্ট তাগিদ পত্র দেওয়া হয়। সেই চিঠির প্রেক্ষিতে ১০টি জেলার তালিকা পাওয়া গেছে। কমিটির সভাপতি শাজাহান খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন কমিটির সদস্য মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, রাজি উদ্দিন আহমেদ, মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম (বীর উত্তম) এবং ক্যাপ্টেন এ বি এম তাজুল ইসলাম বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর