সংবাদ প্রকাশের জের ধরে সাংবাদিককে হত্যার হুমকি: থানায় জিডি ও অভিযোগ

কে এম শাহীন রেজা, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি ॥
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২৪
  • ২৪ বার পঠিত

 

 

 

 

কুষ্টিয়া দৌলতপুর মরিচা ইউনিয়নে হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করে অবৈধ বালি উত্তোলন, হাট-ঘাট, অন্যের জায়গা-জমি দখল ও স্থানীয় মানুষের দোকান-মার্কেট অবৈধ ভাবে দখলকারী সন্ত্রাসী হেদায়েত মোল্লা ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীদের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। তারই জের ধরে সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ বৈরাগীরচর মোল্লা পাড়ার হাসেম মোল্লার ছেলে হেদায়েত মোল্লা-(৩৫) ঢাকা নিউজলাইন এর সম্পাদক, স্টাফ রিপোর্টার দৈনিক আরশীনগর ও জাতীয় পত্রিকা দৈনিক নওরোজ এর স্টাফ রিপোর্টার এবং কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব (কেপিসি) ও সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সদস্য কে মুঠোফোনের মাধ্যমে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও জবাই করে হত্যার হুমকি দেন। এ ব্যাপারে গত বুধবার (১০ ই-এপ্রিল) সাংবাদিক আব্দুস সবুর বাদী হয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে কুষ্টিয়া সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেনযার নং নম্বর-৭৬৬। জানা যায়, গত ২০/০৩/২০২৪ তারিখে দৈনিক নওরোজ, দৈনিক স্বর্ণযুগ, দৈনিক আরশীনগর, সৈনিক পদ্মা গড়াই, দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি পত্রিকা সহ বিভিন্ন পত্রিকা ও অনলাইন রেজিষ্টারভুক্ত পোর্টালে ‘দৌলতপুর অবৈধভাবে বালি উত্তোলনে হুমকির মুখে শত কোটি টাকার রক্ষা বাঁধ’ শিরোনামে উল্লেখিত পত্রিকাতে খবর প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত সংবাদের জের ধরেই গত ৩১/০৩/২০২৪ তারিখ রাত্রি ১০.৪৮ ঘটিকার সময় সাংবাদিক আব্দুস সবুর কুষ্টিয়া মডেল থানাধীন মজমপুর গেট এলাকায় অবস্থানকালে উল্লেখিত বিবাদী তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর হতে সাংবাদিক আব্দুস সবুরের ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে কল করে, সাংবাদিক আব্দুস সবুরের মোবাইল ফোনে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে জবাই করে হত্যার হুমকি প্রদর্শন করে ফোন রেখে দেয়। এদিকে হেদায়েত গংদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে যাহার প্রতিটি মামলার মুলহোতা হেদায়েত মোল্লা। যাহার মামলা নং দৌলতপুর জিআর-২২,তারিখ-২২/০২/২০২৪।
এ ঘটনায় কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব (কেপিসি) ও সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সভাপতি হাজী রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব ও সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়া এর সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান সহ সাংবাদিক মহলের সকলকে অবগত করে বুধবার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে কুষ্টিয়া সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) ও পরে গত ১৪-ই-এপ্রিল চাঁদা দাবী ও জবাই করে হুমকি দাতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। এ বিষয়ে সাংবাদিক আব্দুস সবুর জানান, গত ৩১/০৩/২০২৪ তারিখ রাত্রি ১০.৪৮ ঘটিকার সময় আমি কুষ্টিয়া মডেল থানাধীন মজমপুর গেইট এলাকায় অবস্থানকালে উল্লেখিত বিবাদী হেদায়েত মোল্লার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর থেকে আমার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বওে এ কল করে হেদায়েত মোল্লা আমাকে মোবাইল ফোনে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে জবাই করে প্রাণ নাশের হুমকি প্রদর্শন করে ফোন রেখে দেয়। আমি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীরকাছে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে কুষ্টিয়া সদর থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) ও পরে অভিযোগ করেছি। আমাকে জবাই করে হুমকি দাতাকারীকে ও চাঁদা দাবীকারীদের আইনের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছি। সাধারণ ডায়েরি (জিডি)’র তদন্ত কর্মকর্তা এসআই (নিরস্ত্র) অলোক রায় এর কাছে উল্লেখিত বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ঈদ ও পহেলা বৈশাখের ছুটির শেষে আদালত খুলেছে, ডিজি তদন্তের জন্য আমাদের আইনি প্রক্রিয়া শুরু করেছি, এ বিষয়ে তদন্ত চলমান রয়েছে তদন্ত পরবর্তী সত্যতার ভিত্তিতে অপরাধীকে অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে। অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা এসআই নজরুল ইসলাম এর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন,অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত চলমান রয়েছে,তদন্তে সত্যতার ভিত্তিতে অপরাধী যেই হোক ছাড় দেয়া হবেনা, এজাহার মুলে মামলা ভুক্ত হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর