হরিণাকুণ্ডুতে জঙ্গিবাদ,মাদক ও বাল্যবিবাহ নিরোধে ক্যাম্পেইন করলেন হরিনাকুণ্ডু থানার ওসি

হরিনাকুণ্ডু (ঝিনাইদহ) থেকে মোঃ বাচ্চু মিয়া
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৫ মে, ২০২২
  • ৩৭৬ বার পঠিত

 

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে গত এক সপ্তাহ ধরে প্রত্যেক স্কুল, মাদ্রাসা’র শ্রেণীকক্ষে গিয়ে মাদক,জঙ্গিবাদ,
ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহ রোধে ক্যাম্পেইন করলেন হরিণাকুন্ডু থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

গত সোমবার (২৩ মে) থেকে শুরু করে লাগাতার উপজেলার মান্দারতলা জোড়া পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়,হাজী আরশাদ আলী দাখিল মাদ্রাসা

হাজী আরশাদ আলী ডিগ্রি কলেজ সহ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ ক্যাম্পেইনে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম, দশম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রী এবং কলেজের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের সচেতন করার পাশাপাশি তিনি জঙ্গীবাদকে ধিক্কার
,মাদক,বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিংকে না বলার পাশাপাশি এ সকল অন্যায় কাজ পরিহারে অঙ্গীকার করান তিনি শিক্ষার্থীদের।

এ সময় তিনি মাদক, বাল্যবিবাহ,পালিয়ে বিবাহ করা, কিশোর গ্যাং, ইভটিজিং ইত্যাদি চলমান সামাজিক সমস্যা প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে তোমাদেরকে জ্ঞাত করতে এসেছি বলে জানান।
তিনি আরও বলেন দিন দিন এসকল সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করছে। সবাইকে বলছি, সবার আগে নিজের ভালো সহ পরিবারের ভালো দিকটা দেখতে হবে।

বাল্যবিবাহ রোধে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইনে শপথ করান তিনি, কখনো প্রেম করে পালিয়ে যাবো না, পরিবারকে কষ্ট দেবো না। ইভটিজিং, বাল্যবিয়ে, অসম প্রেম, মোবাইল ফোনে প্রতারণা ও নারী অধিকার, অপ্রাপ্ত বয়স্ক কিশোর-কিশোরীদের পলায়ন সমাজে ব্যাধি হিসেবে যেনো রুপান্তরিত না হই। পর্যায়ক্রমে উপজেলার সকল কলেজ ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ ধরনের ক্যাম্পেইন করা হবে বলে তিনি জানান।

এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আইনে বাল্যবিবাহকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়েছে। যেকোনো মূল্যে এটা প্রতিহত করতে হবে। বাল্যবিবাহ একটি সামাজিক রোগ এ রোগ মেয়েদের বড় ও সাবলম্বি হওয়ার পথে সব থেকে বড় বাধা। অপ্রাপ্ত বয়ষে পালিয়ে গিয়ে নানা সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। সবাইকে বোঝাতে হবে,লেখাপড়া শেষ করে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর পরই মেয়েদের বিয়ে করা উচিৎ ।
এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহ শিক্ষকবৃন্দ, কলেজের অধ্যক্ষ সহ প্রভাষকবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর