কে এম শাহীন রেজা, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি ॥
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৬ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৫৫ বার পঠিত

 

 

 

 

কুষ্টিয়ায় বাউল সম্রাট লালন সাঁইয়ের তিরোধান দিবস উপলক্ষে আগামী ১৭, ১৮, ১৯ অক্টোবর ৩ দিনব্যাপী লালন মেলা অনুষ্ঠিত হবে। এ লক্ষে লালনের মাঠ বরাদ্দের জন্য লালন একাডেমির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক টেন্ডার আহবান করেন। এতে জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চুর নামে একটি মাত্র সিডিউল জমা দেখিয়ে তাকে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে লালন মেলার মাঠ। মেলার জন্য মাঠের জায়গা নির্ধারণ করে বরাদ্দ দেওয়া হলেও তা মানা হয় না। টাকা বেশি তুলতে বেশি বেশি জায়গায় দোকান বসাতে থাকেন ইজারাদার। এ কারণে দিনে দিনে কোনঠাসা হয়ে পড়ছেন লালন উৎসবে আসা সাধু- বাউলরা। পুরোমাঠের এক কোনে সামান্য জায়গা রাখা হয় বাউলদের। বাউল ফজল মিয়া বলেন, লালন তিরোধান দিবস কাদের জন্য? বাউল, লালন ভক্ত অনুরাগীদের নাকি মেলার টেন্ডারদাতা, ব্যবসায়ী ও দোকানীদের? আমাদের ইলিশ ফাইলের মত বাঁশ দিয়ে ঘিরে রাখে, জায়গা এতো অল্প যে নড়াচড়াও করতে পারিনা, ভক্তদের সাথে কথা পরামর্শ করতেও পারিনা।
এদিকে রিটেন্ডার না করে এক সিডিউলে মেলার মাঠ বরাদ্দের ঘটনা এই প্রথম। অতীতের অভিজ্ঞদের বাইরে রেখে একেবারেই অনভিজ্ঞ ও জেলা বিএনপির নেতাকে এক সিডিউলে বরাদ্দ দেওয়ার এমন সিদ্ধান্ত কেন নিলেন? তা জানতে কথা হয় জেলা প্রশাসক এহেতেশাম রেজার সঙ্গে। তিনি বলেন, একটি সিডিউল পড়লেও তাকে বরাদ্দ দিতে আইনগত কোন বাঁধা নেই। কে বিএনপি কে কোনপন্থী তা সিডিউলে উল্লেখ থাকেনা। এটি আমার জানার বিষয় না।
উল্লেখ্য মেলার মাঠ বরাদ্দ পাওয়া আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু বিএনপিপন্থী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর