গাংনীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী, অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করলো সাংবাদিকেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২১ মে, ২০২১
  • ১৬৭ বার পঠিত




মেহেরপুরের গাংনীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে মহিরউদ্দিন(৫০) নামে এক গরু ব্যবসায়ী, অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেল উপজেলার বেশ কয়েকজন সাংবাদিক স্থানীয়রা। আজ শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে গাংনী উপজেলার সাব-রেজিস্ট্রি কার্যালয়ের সামনে হঠাৎ হাটতে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যায়।গরু ব্যবসায়ী মহিউদ্দিন গাংনী পৌরসভা এলাকার চৌগাছা গ্রামের হলপাড়ার হুরমত কসাইয়ের ছেলে।

উদ্ধারকারী কয়েকজন সাংবাদিকরা জানান, আমরা জুম্মার নামাজ পড়তে যাব এর আগে জাকিরের চায়ের দোকানে বসে একটু গল্পগুজব করছে হঠাৎ সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয়ের সামনে এক লোক পড়ে গেছে। আমরা তাকে মাথায় পানি ঢেলে বিভিন্নভাবে সুস্থ করার চেষ্টা করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এ সময় তার প্যান্টের পকেটে ৪২হাজার টাকা, ফতোয়ার পকেটে ১’শ টাকা ও একটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে গাংনীর চোখ এর প্রকাশক ও সম্পাদক রাব্বি আহমেদ এর কাছে রাখি।


গরু ব্যবসায়ীর উদ্দিনের স্ত্রী রোকেয়া খাতুন জানান, আমার স্বামী তার কয়েকজন পার্টনার কে নিয়ে বামন্দির হাটে গরু বিক্রি করতে যায়। পরে কয়েকজন সাংবাদিক আমাকে ফোন করে বলেন আপনার স্বামী অজ্ঞান হয়ে গাংনী উপজেলা তে পড়ে আছে তাকে আমরা উদ্ধার করে গাংনী হাসপাতালে নিয়ে এসেছি আপনি দ্রুত সময়ের মধ্যে আসেলে তার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেকর্ড করেন। যে আমি তাকে অজ্ঞান অবস্থায় দেখি সাংবাদিকরা তার দেখভাল করছে।

একই পাড়ার মহিবুল ইসলামের ছেলে সাঈদ হাসান জানান, সাংবাদিকের এমন মহতী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। গরু ব্যবসায়ীর স্ত্রী রোকেয়া খাতুন কে ৪২হাজার ১’শ টাকা ও একটি মোবাইল ফোন বুঝিয়ে দিয়েছে গাংনীর চোখ এর প্রকাশক ও সম্পাদক রাব্বি আহমেদ। এসময় সাংবাদিকরা লিটন মাহমুদ, আব্দুল্লাহ-আল-মুনিব মাসুদ রানা,এমএ লিংকন,এমএন পাভেল।

গাংনী থানার ওসি বজলুর রহমান জানান ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর