অন ডিউটি অবস্থায় সরকারি গাড়ি ব্যবহার করে কুষ্টিয়া মজমপুরে এলজিইডির সরকারি কর্মকর্তার ভূমিদস্যুতা

কে এম শাহীন রেজা, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪৮১ বার পঠিত

সরকারি অফিস চলাকালীন সময়ে কুষ্টিয়া এলজিইডি এসি অফিসের কুষ্টিয়া অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলম অফিসের ব্যবহৃত ক্যারি বয় গাড়ি
নিয়ে তার নিকটস্থ আত্মীয় কুষ্টিয়া মজমপুর মফিজ উদ্দিন লেনের বাসিন্দা ডাক্তার নাজিম উদ্দিনের পক্ষ নিয়ে উক্ত বাড়ির পার্শ্ববর্তী বাসিন্দাদের সঙ্গে ব্যক্তিগত ক্ষোভ মেটাতে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ার এক পর্যায়ে মারধর, ভয়-ভীতি ও হুমকি প্রদানের অভিযোগ উঠেছে।
ঘটনার বিষয়টির সত্যতা জানতে তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিবেদক সেখানে উপস্থিত হলে, স্থানীয় এলাকাবাসী জানান জাহাঙ্গীর আলম তিনি কুষ্টিয়ার স্থানীয় বাসিন্দা দীর্ঘদিন যাবৎ এলজিডির এসি অফিসে কুষ্টিয়া অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলীর দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। তারা এটাও জানান দীর্ঘদিন যাবৎ ডাক্তার নাজিমুদ্দিন মফিজউদ্দিন লেনের আবাসিক এলাকায় দ্বিতল ভবন বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করছেন, কিন্তু বাড়ির সম্মুখে জায়গা না রেখেই তিনি বাড়ি করেছেন। যার ফলে রাস্তার সংকুচিত হয়ে পড়েছে। উক্ত রাস্তা দিয়ে রিকশা যাওয়ার মত জায়গা ছাড়েননি তিনি। পার্শ্ববর্তী বাসিন্দারা তাকে বারংবার নিষেধ করলেও উক্ত নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে পুনরায় রাস্তার উপরে বাথরুম ও প্রাচীর নির্মাণ করছেন।
উক্ত নির্মাণ কাজ বন্ধ করার জন্য বাড়ির মালিক ডাক্তার নাজিম উদ্দিনকে নিষেধ করলে তিনি তা না শুনে তার মামা কুষ্টিয়া এলজিইডির এসি অফিসের কুষ্টিয়া অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলমকে খবর দিলে অফিস চলাকালীন সময়ে তিনি অফিসের ব্যবহৃত ক্যারি বয় গাড়ি নিয়ে সকাল সাড়ে নয়টার সময় উপস্থিত হয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের উপর চড়াও হয়ে মারধোর করে ১০.৩০ সময় চলে যান।
স্থানীয় বাসিন্দারা এটাও বলেন, আমাদেরকে ফাঁসাতে উক্ত এলজিইডির কর্মকর্তা সুকৌশলে সরকারি কাজে ব্যবহৃত গাড়ির গ্লাস ভেঙ্গে কুষ্টিয়া মডেল থানার তদন্ত কর্মকর্তাসহ পুলিশ ফোর্স নিয়ে এগারোটার সময় আবার উপস্থিত হন নাজিম উদ্দিনের বাড়ির বাসিন্দাদের গ্রেপ্তারের জন্য। সেখানেও সৃষ্টি হয় নানামুখী প্রশ্ন। ওই সময় প্রতিবেদক নির্বাহী প্রকৌশলীকে অন ডিউটি অবস্থায় সরকারি গাড়ি ব্যবহার করে এখানে এসে মারধরের ঘটনা কেন ঘটিয়েছে বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন।
অন্যদিকে তিনি কুষ্টিয়া কোটপাড়া স্থানীয় বাসিন্দা হয়ে কিভাবে কুষ্টিয়া অফিসের বড় কর্মকর্তা হয়ে চাকরি করছেন এ বিষয়ে উঠেছে নানামুখী প্রশ্ন। এ বিষয়ে এলজিইডি অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহিদুর রহমান মন্ডলের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন অফিস চলাকালীন সময়ে সরকারি নিয়ে কোন ব্যক্তিগত কাজ, গন্ডগোল ফাসাদ ও ঘুরতে যাওয়া এটা আইন লঙ্ঘন। অন্যদিকে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায় নাই।
কুষ্টিয়া এলজিইডি এসি অফিসের কুষ্টিয়া অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলমের অন ডিউটি রত অবস্থায় এই ধরনের ভূমিদস্যুতার বিষয়ে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, ঢাকার প্রধান প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ খানের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, অন ডিউটিরত অবস্থায় তিনি কখনোই তার কোন ব্যক্তিগত কাজে অফিসের গাড়ি ব্যবহার করা তো দূরের কথা, অন্য কোথাও কোন প্রকার গ্যাঞ্জাম সৃষ্টি করতে পারবে না। যদি তিনি এটা করে থাকেন তাহলে আমরা তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করব বলে আশ্বাস দেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর