আব্দুল মালেক মন্ডল চেয়ারম্যান হওয়ায় খুশি দিওড় বাসী

নয়ন দাস, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১
  • ৫৬০ বার পঠিত

 

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার দিওড় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইউনিয়ন বাসীর ভালোবাসায় আজ তিনি চেয়ারম্যান উপজেলা নির্বাচন অফিসার মেরাজ হোসেন রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বে-সরকারী ভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

ওই ইউনিয়নের বাসিন্দাদের কাছে সৎ ও যোগ্য প্রার্থী হিসেবে বিশেষ পরিচিতি রয়েছিলো।স্থানীয় জনগণের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়,এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে মোঃ আব্দুল মালেক মন্ডল কে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান।

জানা গেছে,বিরামপুর উপজেলার ৪-নং দিওড় ইউনিয়নের উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণ করে বর্তমানে তিনি সমাজের মানুষের সেবায় মনোনিবেশ আছেন।

ছাত্রজীবন থেকেই জনগণের সেবায় ও বিভিন্ন সামাজিক সেবামূলক নের্তৃত্ব দিয়ে আসছেন।এলাকার অবহেলিত মানুষের সেবা করতে জনগণের দাবিতে তিনি আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীক না পেয়ে স্বতন্ত্র থেকে আনারস মার্কা নিয়ে জয়লাভ করেন। তবে তিনি চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ায় মানুষের মাঝে খুশির আমেজ বিরাজ করছিলো এবং তাকে ভোট দিয়ে জয় লাভ করতে পেরে ইউনিয়নবাসী মুগ্ধ হয়েছে।

ইতোপূর্বে করোনা মহামারির কারণে দেশব্যাপী লকডাউনে মোঃ আব্দুল মালেক মন্ডল দুস্থ ও অসহায়, কর্মহীন মানুষের দ্বারপ্রান্তে গিয়ে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে পরিচিত লাভ করেছেন। এই কঠিন সময়ে মানুষের কাছে গিয়ে তাদের দুঃখ দুর্দশা লাঘব করতে গিয়ে করোনাভাইরাসেও আক্রান্ত হয়েছেন। তবে মানুষের অফরন্ত ভালবাসা ও দোয়ায় তিনি চেয়ারম্যান হিসেবে জয়লাভ করেন।

একজন দক্ষ মানুষ হিসেবে তিনি ইতোপূর্বে বিরামপুর উপজেলার দিওড় ইউনিয়ন এর বিভিন্ন সময়ে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। দিওড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছি স্মরণকালের সেরা চেয়ারম্যানের ভূমিকায় কাজ করবেন ও ইউনিয়নকে জেলার একটি মডেল ইউনিয়নে রূপান্তর করতে পারবে বলে আশাবাদী অত্র ইউনিয়নের জনগণ ও জেলার বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিবর্গরা।

জানতে চাইলে আব্দুল মালেক মন্ডল বলেন,দিওড় ইউনিয়নের জনগণ অত্যন্ত শান্তি প্রিয়। এই ইউনিয়নে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের বাস। এই ইউনিয়নের মানুষের চলাচলের জন্য রাস্তাঘাট নির্মাণ, গরীব অসহায়দের বিভিন্ন ধরণের সহযোগিতা, দুর্নীতি ও অনিয়ম দুরীকরণ, ছাত্র ও যুবসমাজকে মাদক, অন্যায় থেকে দূরে রাখার জন্যই আমি চেয়ারম্যান হিসেবে জয় লাভ করতে পেরেছি।আমি এলাকার মানুষের সেবায় কাজ করে যাবো।

তিনি আরো বলেন,আমি মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি।মানুষ আমাকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে দেখতে চায় তাদের সেবা করার জন্য তা দেখে আমি বিমূঢ়।দল-মতের উর্ধ্বে থেকে যেন সকলের পাশে দাঁড়াতে পারি সেজন্য আমি সকলের দোয়া চাই।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর