উলিপুরে আচরণবিধি লঙ্ঘন প্রচারে লাঙ্গল প্রতীকের উত্তাপ

নয়ন দাস,কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ২৬৮ বার পঠিত

 

কুড়িগ্রামের উলিপুরে চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে নির্বাচনি প্রচার-প্রচারনা চলছে।নির্বাচন প্রচারণায়,আচরণবিধি লঙ্ঘন প্রচারে লাঙ্গল প্রতীকের উত্তাপ।গত ২২ই ডিসেম্বর সকাল ৯টার দিকে বিভিন্ন ইউনিয়নের মানুষ অটো রিক্সা ও মোটর সাইকেল নিয়ে আসেন।

পরে ঢাক,ঢোল,হারমোনিয়াম বর-কনে,সাজিয়ে নিয়ে রাস্তা অবরোধ করে নাচ মিছিল দেয়।
নির্বাচনীয় আচরণবিধি লঙ্ঘনের খবর পেয়ে ছুটে আসেন,উপজেলার নির্বাচনের দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন,এ্যাসিলেন্ড জনাব,মোঃ আশরাফুল ইসলাম রাসেল,হাতিয়া ইউনিয়নের বাগুয়া অনন্তপুর হাইস্কুল মাঠে উপস্থিত হলে,শোভাযাত্রায় আগত লোকজন দিক বিদিকে ছুটিয়ে পালিয়ে যায়। এতে উক্ত শোভাযাত্রার বিলুপ্তি ঘটে।

উলিপুর উপজেলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রথম থেকেই তিনি তার দায়িত্ব অটুটু রেখেছেন, নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট জনাব,মোঃ আশরাফুল ইসলাম রাসেল,উপজেলা ১৩টি ইউনিয়নে নিয়মিতভাবে অভিযান পরিচালনা করছেন।

হাতিয়া ইউনিয়নের জাতীয় পার্টি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর পোস্টারে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে দলের প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছবি ব্যবহার করেন।

এ ঘটনায় রিটানিং কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে ওই ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের প্রার্থী।আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে জানতে চাইলে দলীয় প্রার্থী মোঃ শায়খুল ইসলাম (নয়া)বলেন,প্রচারের সময় রাস্তায় কোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতা যেন সৃষ্টি না হয়, সেদিকে দৃষ্টি রাখতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান নৌকার প্রার্থী।

প্রতিপক্ষ যেদিন থেকে মার্কা পেয়েছে,সেই দিন থেকে আমার এবং আমার নেতাকর্মীর উপরে বিভিন্ন ধরনের পাঁয়তারা চালিয়ে আসতেছে।এমনকি বাংলাদেশ সরকার দেশরত্ন মাননীয় শেখ হাসিনার নৌকা প্রতীকে পুড়িয়ে দিয়েছিল,লাঙ্গল প্রতীকের নেতাকর্মীরা,তারা চাচ্ছে ঝামেলা সৃষ্টি করে আমার নেতাকর্মী ও জনপ্রিয়তার বিলুপ্তি ঘটাতে চাচ্ছে।তিনি বলেন, ‘অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেবেন। রাস্তায় যাতে যানজট না হয়। আমরা প্রত্যেক ব্যক্তির সঙ্গে যেন সংযোগ করতে পারি, সেই ব্যবস্থা আপনারা করে দেবেন।আমি আশা করি জনগণ নৌকার পক্ষে রায় দেবেন।’

এ বিষয়ে হাতিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী বিএম আবুল হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

গত (২২ই ডিসেম্বর বুধবার)সকাল ১০টার দিকে জাতীয় পার্টি মনোনীত লাঙ্গল মার্কার প্রার্থী বি এম আবুল হোসেন বাগুয়া অনন্তপুর হাইস্কুল মাঠে নির্বাচনী শোভা যাত্রা আয়োজন করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান বিএম আবুল হোসেন। তিনি মার্কা পাওয়ার পর থেকেই আচরণবিধি লঙ্ঘন করে আসতেছে,বর্তমান জাতীয় পার্টির প্রধানের ছবি ছাড়াও দলের প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছবি ব্যবহার করে বিভিন্ন জায়গায় পোস্টার সাঁটিয়েছেন তিনি। এছাড়া দেশরত্ন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখহাসিনার নৌকা প্রতীক ও পুরিয়ে দেন তার নেতাকর্মীরা।

আচরণবিধি লঙ্ঘনের ঘটনায় রোববার (১৯ ডিসেম্বর) হাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ শায়খুল ইসলাম (নয়া) ওই ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটানিং কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন, নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট জনাব,মোঃ আশরাফুল ইসলাম রাসেল বলেন,যদি নিদের্শ অমান্য করে নির্বাচনী আচরনবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর