কুষ্টিয়া পাটিকাবাড়ি ইউপি’র বিতর্কিত চেয়ারম্যানের মাদক সেবনের ভিডিও ভাইরাল

কে এম শাহীন রেজা, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি।।
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১
  • ৪৯৫ বার পঠিত

 

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার পাটিকাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সফর আলীর বিরুদ্ধে কার্যালয়ে বসে মাদকসেবন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মাদকসেবনের একাধিক ভিডিও এলাকার মানুষজনের মোবাইলে ছড়িয়ে পড়েছে।

ভিডিও দেখার পর দলসহ সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। দলীয় নেতারা বলছেন, এমন ঘটনা দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের সামিল। তাই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সফর আলী চেয়ারম্যানের পাশাপাশি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকও। তিনি পরপর দুইবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

স্থানীয় কয়েকটি সূত্র জানায়, ২০১১ সাল থেকে টানা দুইবার আওয়ামী লীগ নেতা সফর আলী চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন। এবারও দলীয় মনোনয়ন পেতে স্থানীয় ইউনিয়ন কমিটি থেকে তার নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে আগামী ৫ জানুয়ারি এই ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এক মিনিট চার সেকেন্ড ও এক মিনিট ৩৫ সেকেন্ডের দুটি ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, চেয়ারম্যান পরিষদে তার কক্ষে বসে ফেনসিডিল সেবন করছেন। আবার কখনও টয়লেটের ভেতরে তিনি মাদক সেবন করছেন। তবে ভিডিওগুলো কবে কখন তোলা, সেটা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাটিকাবাড়ী গ্রামের এক তরুণ বলেন, চেয়ারম্যান বিভিন্ন সভা-সমাবেশে মাদকের বিরুদ্ধে কথা বলেন। কিন্তু তিনি নিজেই নিয়মিত মাদক সেবন করছেন। এটা যুবসমাজকে দিন দিন ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে। প্রশাসনের কাছে অনুরোধ, দ্রুত তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ইব্রাহীম খান বলেন, ভিডিওতে যেটা দেখলাম, এটা যদি সত্যি হয়, তবে খুবই খারাপ কাজ করেছেন। এটা লজ্জাজনক। প্রধানমন্ত্রী যেখানে মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন, সেখানে ইউনিয়ন অফিসে বসে মাদকসেবন লজ্জাজনক।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম বলেন, এমন ঘটনা অবশ্যই দলের জন্য দুঃখজনক। দলীয় সভায় বিষয়টি তুলে ধরা হবে। সর্বসম্মতিক্রমে যে সিদ্ধান্ত হবে, সে মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসগর আলী বলেন, যদি এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকে, অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। কারণ হচ্ছে, মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের সরকার জিরো টলারেন্স। সমাজটাকে এই মাদক নষ্ট করছে। অফিসে বসে মাদকসেবন করা- এটা কাম্য না। আওয়ামী লীগের বদনাম হবে, এটা সহ্য করা হবে না। দলীয়ভাবে অবশ্যই এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান সফর আলী বলেন, ভিডিও কীভাবে কারা বানিয়েছে, তা আমার জানা নেই। আমি দেখিনি এখনও, শুনেছি। আমাকে কয়েকজন ফোন করে জানিয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর