তালায় প্রতিবন্ধী সাংবাদিক সিরাজুলের বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় থানায় এজাহার, নিরাপত্তার জন্য জিডি

মোঃ শহিদুল ইসলাম,স্টাফ রিপোটার
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৫ আগস্ট, ২০২২
  • ১০৩ বার পঠিত

 

সাতক্ষীরা তালার প্রতিবন্ধী প্রতিনিধি ও সাংবাদিক সিরাজুলের বাড়িতে আবারো ভয়াবহ হামলা ভাংচুর লুটপাটের ঘটনায় সিরাজুল বাদী হয়ে তালা থানায় এজাহার দিয়েছেন এবং নিরাপত্তার জন্য ০৩ আগষ্ট ২০২২ ইং তারিখে থানায় ডায়েরী করেছেন, যার নম্বর (১৩১)। নিরাপত্তার অভাবে সিরাজুল কিছুদিন গৃহবন্দী থাকার পর এজাহার ও ভায়েরী করার জন্য তালায় যাওয়ার ঘটনা জানতে পেরে ফেরার পথে সিরাজুলের ওপর হামলা চালিয়ে সিরাজুলকে হত্যার জন্য সন্ত্রাসী সাকু ও তার লোকজন রাস্তায় মহড়া দেয় এমন খবর পাওয়া গেছে। নিরাপত্তার অভাবে সিরাজুল অনেক রাতে গোপনে তালা থেকে বাড়িতে ফেরেন বলে জানিয়েছেন। গত ২৪ জুলাই আনুমানিক বিকাল ৫ ঘটিকার সময় প্রতিবন্ধী সাংবাদিক ও পুনর্বাসন কল্যাণ সমিতি তালা থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক শেখ সিরাজুল ইসলামের বাড়িতে ভয়াবহ হামলা চালায় এলাকার ত্রাস হত্যা দখলবাজি হামলা লুটপাট নাশকতা সরকার বিরোধী কর্মকান্ড নারী কেলেঙ্কারি সহ বহু অপকর্মের হোতা ও মামলার আসামি এলাকার মুর্তিমান আতঙ্ক সন্ত্রাসী কোপা সাকু ও তার ভাই হত্যা সরকার বিরোধী কর্মকান্ড নাশকতা নারী কেলেঙ্কারি সহ বহু অপকর্মের হোতা ও মামলার আসামি বিএনপি নেতা ওলি শেখ সহ তাদের লোকজন। সন্ত্রাসী সাকুর বিরুদ্ধে একটি ঘটনার সংবাদ সংগ্রহ করায় গত (৩০)মে রাতে শালিখা কলেজের সামনে সিরাজুলের ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালায় সাকু ও তার বাহিনী। এঘটনায় মামলা হলে পুলিশ সাকুকে গ্ৰেফতার করে আদালতে চালান দেয়। পরে সাকুর আইনজীবী আদালতে সাকুর জামিন আবেদন করলে আদালত সন্ত্রাসী সাকুর সমস্ত কুকর্মের বর্ননা শুনে এবং সিরাজুলের প্রতিবন্ধী ও সাংবাদিকতার কার্ড দেখে জামিন নামঞ্জুর করেন। আদালত হতে বাড়ি ফেরার পথে (১৩)ই জুন তালার মাগুরা এলাকা থেকে সন্ত্রাসী সাকুর ছেলে রাব্বি শেখ তরিকুল ও অজ্ঞাতনামা একজন অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সিরাজুলের মোবাইল কাগজপত্র কার্ড সহ সবকিছু ছিনিয়ে নেয়। এঘটনায় চিনতে পারা রাব্বি শেখ ও তরিকুলের নাম উল্লেখ করে এবং চিনতে না পারা একজনকে অজ্ঞাত দেখিয়ে তালা থানায় লিখিত অভিযোগ করেন সিরাজুল। এর এক সপ্তাহ পর আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পায় সন্ত্রাসী সাকু। জামিনে বেরিয়ে এসে মামলা তুলে নেয়ার জন্য নিয়মিত হুমকি দিতে থাকে সন্ত্রাসীরা। এরই ধারাবাহিকতায় ইং (২৪) জুলাই আনুমানিক বিকাল ৫-ঘটিকার সময় সাকু ওলি সহ তাদের লোকজন সিরাজুলের চাচাতো ভাইয়ের বাড়িতে গিয়ে সিরাজুলকে মামলা তুলে নিতে বলতে বলে। এসময় ওলি সাকু সহ তাদের লোকজন সিরাজুল মামলা তুলে না নিলে সিরাজুলকে সপরিবারে কেটে টুকরো টুকরো করে হত্যা করার হুমকি দেয়। সিরাজুলের চাচাতো ভাই এ বিষয়ে কিছু করতে পারবে না বলে দিলে সন্ত্রাসী সাকু ওলি সহ তাদের লোকজন আগ্নীঅস্ত্র লোহার রড ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে সন্ত্রাসী সাকু, ওলি শেখ, বখাটে মাদক সেবী রাব্বি শেখ, সাকুর স্ত্রী রত্না, ওলি শেখের স্ত্রী ইয়াসমিন, ওলি শেখের মেয়ে রাবু সিরাজূলের বাড়িতে ঢুকে সিরাজুলকে মামলা তুলে নিতে এবং বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে হুমকি দেয়। সিরাজুল মামলা তুলে নিতে ও বাড়ি ছাড়তে রাজি না হলে সন্ত্রাসী সাকু সহ তার দলবল সিরাজুলের বাড়িতে হামলা লুটপাট ভাঙচুর সহ বাড়ি দখলের চেষ্টা চালায়। এসময় সিরাজুলের বাড়ি থেকে নগত টাকা সোনার গহনা সহ মুল্যবান লক্ষাধিক টাকার জিনিসপত্র লুট করে নেয়। সন্ত্রাসী সাকু ও তার লোকজন প্রতিবন্ধী সিরাজুল সিরাজুলের স্ত্রী ও সিরাজুলের আট বছরের প্রতিবন্ধী শিশু মেয়েকে মারপিট করে ফোলা জখম করে ও শীলতাহানি করে। হামলার সময় সন্ত্রাসী সাকু ওলি সহ তাদের লোকজন মামলা তুলে না নিলে ও বাড়ি ছেড়ে চলে না গেলে প্রতিবন্ধী সিরাজুল ও তার স্ত্রী সন্তানকে মেরে ফেলার হুমকি দিতে থাকে। হামলার সময় সাকুর স্ত্রী বলে আকিমদ্দীকে খুন করি আমাগির বিটারা ভুগি মরতিছ এইবার তোর খুন করি ভোগবে। প্রতিবন্ধী সিরাজুল ও তার স্ত্রী সন্তানের চিৎকারে লোকজন ছুটে এসে অবস্থা বেগতিক দেখে হামলাকারীদের ঘর থেকে বাইরে বের করে দেয়। এসময় হামলাকারিরা আবারো বাড়ির ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করলে উপস্থিত লোকজন ও সিরাজুলের স্ত্রী বারান্দার গ্ৰিলে তালা বন্ধ করে দিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। এরপরও সন্ত্রাসী সাকু ওলি রাব্বি সহ তাদের লোকজন সিরাজুলকে সপরিবারে হত্যার জন্য লোহার রড লাঠিসোটা দিয়ে দীর্ঘক্ষন গ্ৰিল ভেঙে ঘরে ঢোকার চেষ্টা চালায়। দীর্ঘক্ষন চেষ্টা চালিয়ে গ্ৰিল ভাংতে ব্যার্থ হয়ে সাকু ওলি রাব্বি সহ তাদের লোকজন সিরাজুল ও তার স্ত্রী সন্তানকে বাড়ির বাইরে পেলে হত্যা সহ আবারো সিরাজুলের বাড়িতে হামলা লুটপাট করার হুমকি দিতে দিতে চলে যায়। প্রতিবন্ধী সিরাজুলের বাড়িতে ভয়াবহ হামলার ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সর্বসাধারণ বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি সহ প্রতিবন্ধী মানবাধিকার সহ বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় তোলেন এবং অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণসহ সিরাজুল ও তার পরিবারের নিরাপত্তার জন্য প্রশাসনের জোর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন যাবত সন্ত্রাসী সাকু ও তার লোকজন এলাকায় খুন দখলবাজি নারী কেলেঙ্কারি নাশকতা সরকার বিরোধী কর্মকান্ড সহ বিভিন্ন অপরাধ করে চলেছে। সন্ত্রাসী সাকুর বিরুদ্ধে আকিমদ্দী হত্যা দখলবাজি হামলা-লুটপাট সহ বিভিন্ন মামলা চলমান আছে। সন্ত্রাসী সাকু এতোটাই ভয়ংকর যে সাকু কোনো অপরাধ করলে তার বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস কেউ রাখেনা। এছাড়াও আরেক হামলাকারী ওলি শেখ আকিমদ্দী হত্যা মামলার অন্যতম আসামি, এই ওলি শেখের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারি সরকার বিরোধী কর্মকান্ড গাছ কাটা সহ বিভিন্ন অভিযোগ ও মামলা রয়েছে। ওলি শেখের বাড়িতে স্ত্রী সন্তান ছাড়াও শালিখা এলাকায় আমেনা নামের এক দিনমজুর স্ত্রী এবং ওলিফা নামের আট বছরের এক মেয়ে রয়েছে। প্রতিবন্ধী প্রতিনিধি ও সংবাদকর্মী সিরাজুলের উপর বারবার সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের প্রস্তুতি

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর