নওগাঁয় সাংবাদিকে হয়রানি করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানার অভিযোগ

সুবীর দাস নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১০ জুলাই, ২০২১
  • ৬০১ বার পঠিত

নওগাঁয় করোনায় কঠোর লকডাউন এর মধ্যে পেশাগত দ্বায়ীত্ব পালন করতে যায়ার সময় এক সাংবাদিককে দেহ তল্লাশি করে ১৮৬০ সালের দঃ বিঃ ১৮৮ ধারা মতে জরিমানার করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইকবাল হোসাইন এর বিরুদ্ধে। জরিমানার স্বীকার ওই সাংবাদিকের নাম আতাউর রহমান। তিনি দৈনিক মহাস্থান পত্রিকার নওগাঁ জেলা প্রনিনিধি। শনিবার সকাল ১০ ৪০ মিনিটে নওগাঁ শহরের তাজের মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।
জরিমানার স্বীকার সাংবাদিক আতাউর রহমান জানান, আমি পেশাগত দ্বায়ীত্ব পালন করতে শহরের মুক্তির মোড় মেইন রোড দিয়ে বাইক নিয়ে যাচ্ছিলাম এসময় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইকবাল হোসাইন আমাকে থামতে বললে আমি বাইক দাঁড় করাই। এর পর তিনি আমার দেহ তল্লাশী করতে শুরু করে। আমি নিজেকে এক জন সংবাদকর্মী পরিচয় দিলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। এর পর আমাকে বলেন আপনি লকডাউনে বের হয়েছেন কেন। তখন আমি বলি সংবাদকর্মীদের লকডাউনে তো পেশাগত কাজ করার অনুমতি আছে। আমার এমন কথায় তিনি আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ১৮৮ ধারায় মামলা দিয়ে জরিমানা করেন। তার এমন আচারনে আমি সত্যিই অবাক হয়েছি।
এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়েরসহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইকবাল হোসাইন জানান, একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। তবে কোন খারাপ আচারণ করা হয়নি। আর তার বাইকের কোন কগজপত্র না থাকায় আইন অনুযায়ী জরিমানা করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদ জানান, ওই সংবাদকর্মীর সাথে হয়তো একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। বিষয়টি আমি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
এ ঘটনায় নওগাঁ জেলা টেলিভিশ জার্নালিষ্ট এ্যাসোসিয়েশন ও সুজন নওগাঁ জেলা কমিটি ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।

সুবীর দাস
নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর