বালুখেকো হান্নান মন্ডলের সন্ত্রাসী বাহিনীর স্বীকার কুষ্টিয়ার ৬ সাংবাদিক

কে এম শাহীন রেজা, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি ॥
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৫৫ বার পঠিত

 

 

উচ্চ আদালতের নির্দেশনা উপেক্ষা করে কুষ্টিয়ার পদ্মা নদী থেকে এখনো অবৈধভাবে বালু তোলা হচ্ছে এমন তথ্য পেয়ে সংবাদের ফলোআপ করতে গেলে বালু খেকো হান্নান মন্ডলের নের্তৃত্বে তার সন্ত্রাসী বাহিনী কর্তৃক পদ্মা নদীতে ৬ সাংবাদিকের উপর হামলা করে। ঐ সময় তারা সাংবাদিকেদের স্প্রীট বোটটি ডুবিয়ে দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। চেষ্টা করে অপহরণেরও। ছিনিয়ে নেয় ক্যামেরা ও মোবাইল ফোন। ২০ তারিখ শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কুষ্টিয়ার সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নে পদ্মা নদীর মাঝে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বাংলাদেশ প্রতিদিন ও নিউজ টোয়েন্টিফোর টেলিভিশনের সাংবাদিক জাহিদুজ্জামান কুষ্টিয়া মডেল থানায় এজাহার জমা দিয়েছেন।
এজাহারে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ প্রতিদিন ও নিউজ টোয়েন্টিফোর টেলিভিশনের সাংবাদিক জাহিদুজ্জামান, বাংলাভিশনের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি হাসান আলী, চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের বিশেষ প্রতিনিধি শরীফ বিশ^াস, এনটিভির কুষ্টিয়া প্রতিনিধি সাবিনা ইয়াসমীন শ্যামলী ও ক্যামেরাম্যানসহ নৌকায় করে ঘটনাস্থলে যান। সেখানে অসংখ্য চোষক মেশিন দিয়ে নৌকায় বালু তোলা হচ্ছিল। কিছুক্ষণ ভিডিও ধারন করার পর তালবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান মন্ডলের নির্দেশে শামীম, টিক্কা ও সজিবসহ মোট ৬জন সন্ত্রাসী আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে গুলি বর্ষন করতে করতে এসে হামলা করে। এদের মধ্যে দুজনের মুখ তোয়ালে দিয়ে বাঁধা ছিলো। তারা সাংবাদিকদের স্পীড বোটটি তাদের স্পিডবোট দিয়ে ধাক্কা মেরে ডুবিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। সেসময় তারা সাংবাদিকদের অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। ছিনিয়ে নেয় ভিডিও ধারণ করা একটি ক্যামেরা এবং মোবাইল ফোন। পরে কোনমতে নৌকা নিয়ে ফিরে আসতে পারেন সাংবাদিকরা।
কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, মামলঅর এজাহারের কপি হাতে পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এর আগে এনটিভিসহ বিভিন্ন মিডিয়ায় পদ্মা নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলন নিয়ে ধারাবাহিক সংবাদ প্রচার হওয়ায় এ ধরনের হামলা হয়েছে বলে ধারনা করছে সূশীল সমাজ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর