রাস্তাজুড়ে খানাখন্দ, কাদাপানিতে দুর্ভোগ তিন গ্রামের মানুষের

হরিণাকুণ্ডু ( ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৫৯০ বার পঠিত

ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডু উপজেলার জোড়াদহ ইউনিয়নের ভেড়াখালী বাজার হতে ভেড়াখালী প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার রাস্তাজুড়ে খানাখন্দের কারণে চরম দূভোর্গ পোহাতে হচ্ছে তিন গ্রামের মানুষের। রাস্তার অধিকাংশ জায়গায় সোলিং করা ইট উঠে গিয়ে রাস্তা ধ্বসে সৃষ্টি হয়েছে গর্ত। গর্তের কারণে যানবাহন চলাচল তো দুরের কথা পায়ে হেঁটে চলাচলই দূস্কর হয়ে পড়েছে। ১৯৯৮ সালে ইট দিয়ে সলিং করা এ রাস্তা নিয়ে জনগণের দূর্ভোগ দীর্ঘদিনের হলেও এ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেয়নি ইউনিয়ন পরিষদের কোন চেয়ারম্যান বলে অভিযোগ আছে ভুক্তভোগীদের।
স্থানীয় বাসিন্দা নায়েব আলী দৈনিক দেশের কন্ঠ প্রতিনিধিকে জানান, রাস্তার বেহাল দশার কারণে মানুষ পায়ে হেঁটে চলাচল করতে পারছে না। ভাঙ্গা চোরা রাস্তায় প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। বিশেষ করে স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্র -ছাত্রী, অসুস্থ রোগী, নারী ও শিশুদের জন্য বিপদ জনক হয়ে পড়েছে রাস্তাটি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য লালন আলী বলেন, রাস্তাটি তৈরি হওয়ার পর দীর্ঘ দুই যুগ পেরিয়ে গেলেও কোনো প্রকার পুনঃ নির্মাণ বা সংস্কার হয়নি এটা সত্য । ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে রাস্তা সংস্কারের ব্যাপারে বিভিন্ন সময় অবহিত করা হলেও এ ব্যাপারে তিনি কোনো পদক্ষেপ নেননি।

রাস্তাটির ব্যাপারে জোড়াদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা পলাশের সাথে কথা বলতে তাকে একাধিকবার ফোন কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী ( এলজিইডি ) নাফিস তানজিম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে রাস্তার কোনো প্রকার সংস্কার না হওয়াটা সত্যিই দুঃখজনক। তবে আমরা খোজ-খবর নিয়ে রাস্তাটি সংস্কারের জন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর