সন্ত্রাসী হামলার স্বীকার কুষ্টিয়ার চাউল ব্যবসায়ীর অবস্থা আশঙ্কাজনক: ঢাকায় রেফার্ড

কে এম শাহীন রেজা, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৩০ আগস্ট, ২০২১
  • ৫৪৫ বার পঠিত

 

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আইলচারা ইউনিয়নের আমানতপুর গ্রামের রাইস মিল মালিক জান মোহাম্মদ (৫৫) রবিবার সকাল দশটার দিকে সাড়ে চার লক্ষ টাকা নিয়ে পোড়াদহ ব্যাংকে যাওয়ার পথে তার পথ গতিরোধ করে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী। আমানতপুর গ্রামের ফারুকের দোকানের সামনে গতিরোধ করে লোহার রড, হাতুড়ী দিয়ে পিটিয়ে মারাত্বকভাবে আহত করেছে প্রভাবশালী দূর্বৃত্তরা। তবে জানা গেছে উক্ত এলাকার এক প্রভাবশালী রাইস মিল মালিকের ইন্ধনে এই নেক্কারজনক ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, ঐ একই গ্রামের আমিরুল(৪০) পিতা ঝাড়ু, মনিরুল(৩৮) পিতা ঝাড়ু, মহিবুল, জুমারত, আব্দুর রাজ্জাক, পিতা মৃত ছের আলী, নিজাম সহ ১২/১২ জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী ব্যবসায়ী জান মহাম্মদকে আটকিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে তার নিকট থেকে সাড়ে চার লক্ষ টাকা লুঠ করে নিয়ে যায়। জমি জমাকে কেন্দ্র গত রোজার ঈদের কয়েকদিন পর একটি গ্যাঞ্জাম বাধে। যে কারণে ব্যবসায়ী জান মোহাম্মদ গত ২৬/০৭/২০২১ইং তারিখে সদর থানায় নিজের পরিবারের নিরাপত্তার জন্য সাধারন ডায়েরী করেন তার নং-১২১৪।

জান মোহাম্মদ প্রতিবেদককে জানান, তার ডান পা ও দুই হাত হাতুড়ী দিয়ে সন্ত্রাসীরা দীর্ঘ সময় ধরে এলোপাথাড়ি সজোরে আঘাত করে সমস্ত হাড় গুড়িয়ে দিয়েছে। সেই সাথে তার মুখের বাম দিকে পিঠে বুকের উপরে বেধড়ক পিটিয়ে মারাত্বকভাবে যখম করেছে। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কুষ্টিয়া সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রবিবার রাত্রেই তাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করেছেন বলে তার ভাই আকমল হোসেন জানান। বর্তমানে সদর হাসপাতালের মেঝেতে অচেতন হয়ে শুয়ে আছেন খাজানগরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জান মোহাম্মদ।

ইতিমধ্যে আইলচারা ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান সদস্য মংরাজ মেম্বর এর বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে সদর থানা পুলিশ। এদিকে জান মোহাম্মদ এর ভাই প্রতিবেদককে বলেন, আমরা মামলা করার জন্য কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর